ওয়াশিংটন। জালিয়াতির বিষয়ে উদ্বেগের কারণে নভেম্বরে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন স্থগিত করার পরামর্শটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তত্ক্ষণাত প্রত্যাহার করেছেন। তিনি এই ইস্যুতে শীর্ষস্থানীয় রিপাবলিকান নেতাদের সমর্থনও পাননি।

নভেম্বরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় মেয়াদে মনোনীত প্রার্থী ট্রাম্পের ডেমোক্র্যাটিক মনোনীত প্রার্থী এবং প্রাক্তন সহ-রাষ্ট্রপতি জো বিডেন, যাকে নির্বাচন-পূর্বের বেশ কয়েকটি বড় সমীক্ষায় ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে বিবেচনা করা হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তারিখটি বৈধভাবে নভেম্বর মাসের প্রথম সোমবারের পরে মঙ্গলবার হবে। বৃহস্পতিবার ট্রাম্প প্রকাশ্যে নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হওয়া রাষ্ট্রপতি নির্বাচন স্থগিত করেছেন। তিনি ডাক ভোটের ঝামেলা হওয়ার আশঙ্কা করেছিলেন।

বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতারা তত্ক্ষণাত তাঁর পরামর্শের সমালোচনা করেছিলেন। এই বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্প তার নিজের রিপাবলিকান পার্টির নেতাদের সমর্থনও পাননি। ট্রাম্প পরে তার পরামর্শ প্রত্যাহার করে নেন। নির্বাচন স্থগিত করার পরামর্শ দেওয়া টুইটের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেছিলেন যে আমি আর দেরি করতে চাই না। আমি নির্বাচন চাই তবে আমি তিন মাস অপেক্ষা করার পরেও জানতে চাই না যে ভোটের কোনও অর্থ নেই।

নির্বাচনের ঠিক ৯৯ দিন আগে বৃহস্পতিবার ট্রাম্প টুইট করেছিলেন, সবার পক্ষে ডাক ভোট (ডাক ভোটের অনুপস্থিতি নয়, যা ভাল) ইতিহাসের সবচেয়ে সঠিক এবং জালিয়াতিপূর্ণ নির্বাচন হবে। তিনি টুইট করেছেন যে এটি আমেরিকার জন্য লজ্জাজনক হবে। যখন লোকেরা সঠিক ও নিরাপদে ভোট দিতে পারে তখনই নির্বাচন অনুষ্ঠিত উচিত।

হোয়াইট হাউসে ফিরে যাওয়ার জন্য লড়াই করা ট্রাম্প যুক্তি দিয়েছিলেন যে মেল-ইন ভোটদানের ফলে নির্বাচনের সমস্যা হতে পারে। তিনি এর সোচ্চার প্রতিপক্ষ হয়েছেন। ট্রাম্প বলেছেন, ডাক ব্যালট এবং নির্বাচনের ফলাফল গণনা বিলম্বিত হবে।
কোভিড -১৯ মহামারী চলাকালীন বিপুল সংখ্যক ভোটার ভোটকেন্দ্রে যেতে এবং সারিবদ্ধভাবে এড়াতে ডেমোক্র্যাটরা পোস্ট দিয়ে ভোট দেওয়ার জন্য জোর দিচ্ছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here